‘শিক্ষার্থীরা মোবাইল নিয়ে ঢুকতে পারবে না স্কুলে ’

যুক্তি ব্যবহারে অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশের স্কুলে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরাও বেশ এগিয়ে। তাদের হাতে স্মাটফোন বা ট্যাব অহরহ দেখা যায়। তবে এই সোশাল মিডিয়া নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে বিতর্কের শেষ নেই। তারপরও এই বয়সেই যদি ওরা শিশুসুলভ কর্মকাণ্ড ভুলে কেবল প্রযুক্তি নিয়েই পড়ে থাকে, তবে তাদের মানসিক বিকাশ কীভাবে হবে? কিন্তু এসব নিয়ে কেবল আলোচনায় সময় নষ্ট না করে পদক্ষেপ গ্রহণকেই জরুরি বলে মনে করলেন সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) কামরুন নাহার সিদ্দীকা। তিনি বলেন , জেলার কোনো স্কুলে মোবাইল ফোন নিয়ে শিক্ষার্থীরা যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য পদক্ষেপ নিতে শিক্ষা বিভাগকে নির্দেশনা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে সিরাজগঞ্জ জেলা আইনশৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় সভপতির বক্তব্যে ডিসি কামরুন নাহার সিদ্দীকা এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করেছি। ইন্টারনেট ব্যবহারের সুফল ও কুফল রয়েছে। স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা খারাপ দিক ব্যবহারে যাতে উৎসাহী না হয় সে জন্য শিক্ষকদের ভূমিকা রয়েছে। কারণ এ তরুণরাই আগামী দিনের বাংলাদেশ নির্মাণ করবে। তাদের তথ্যপ্রযুক্তির প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করা আমাদের দায়িত্ব।

জেলা প্রশাসক বলেন, জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে বিশেষ করে জনপ্রতিনিধিদের কাজ করতে হবে। নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ এবং অপরাধ দমনে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। রমজান মাসে জেলার আইনশৃংখলা নিয়ন্ত্রণে থাকায় সরকারের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

এ ছাড়াও সিরাজগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আবু ইউসুফ রমজান ও ঈদে অপরাধ খুবই কম হওয়া এবং যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক থাকায় সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

ওই অনুষ্ঠান সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়রম্যান রিয়াজ উদ্দিন, সিনিয়র সাংবাদিক হেলাল আহমেদসহ জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ সভায় বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *