জীবন বাঁচাতে ৪ ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ বাবার

একুশের বার্তা ডেস্ক- গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে বৃদ্ধা বাবা-মার ওপর নির্যাতন, প্রতারণা করে জমি লিখে নেয়া ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ উঠেছে চার ছেলের বিরুদ্ধে। জীবন বাঁচাতে বাধ্য হয়ে অসহায় বাবা বাদি হয়ে চার ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে পলাশবাড়ী থানায় আবদুস সামাদ, মিজানুর রহমান, আজিজার রহমান ও লেবু মিয়াসহ চার ছেলেকে আসামি করে লিখিত অভিযোগ করেন বৃদ্ধ বাবা আলহাজ জয়নাল আবেদিন। লিখিত অভিযোগটি আমলে নিয়ে নির্যাতিত বৃদ্ধ বাবা-মার পাশে থাকাসহ তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাটি গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার হিজলগাড়ী গ্রামের। ওই গ্রামের মৃত্যু কিশমত উল্লাহ আকন্দের ছেলে আলহাজ জয়নাল আবেদিন।

জয়নাল আবেদিনের অভিযোগ, ২০০৭ সালে হজ্বে যাওয়ার সময় পার্সপোর্ট আর ভিসার কথা বলে টিপ সহি নিয়ে কৌশলে সাড়ে ১৪ বিঘা জমি লিখে নেয় চার ছেলে। প্রতারণা করে জমি লিখে নেয়ার ঘটনায় আদালতে মামলা করেন তিনি। মামলার পর জাল দলিলের প্রমাণ মিললে আদালত তার পক্ষে ডিক্রি জারি করেন।

তিনি বলেন, ‘আদালতের ডিক্রির পর থেকে তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন চার ছেলে। জমি লিখে নিতে স্বাক্ষরের চেষ্টা, বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়াসহ তার ওপর নির্যাতন শুরু করেন চার ছেলে। এতেও রাজি না হওয়ায় গত ২৩ মে বিকেলে চার ভাই মিলে তার বাড়িতে ঢুকে গালিগালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে তার ছেলে তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় তারা দ্বিতীয় স্ত্রী পিয়ারা বেগমকে মারধর করা হয়।

সৎ মা পিয়ারা বেগমের অভিযোগ, সব জমাজমি ছেলেদের দখলে থাকায় কোন রকমে স্বামীকে নিয়ে দিন কাটছে তাদের। বর্তমানে মাথার গোঁজার ঠাঁই হিসেবে শুধু জীর্ণ দুটি ঘর আছে। খেয়ে না খেয়ে অনেক কষ্টে দিনাতিপাত করলেও প্রায়ই তাকেসহ তার স্বামীর ওপর নির্যাতন করে ছেলেরা। এছাড়া যখন তখন তাদের প্রাণনাশের হুমকিও দিচ্ছেন ছেলেরা। বর্তমানে স্বামীকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন’।

জয়নাল আবেদিন বলেন, ‘জীবনের শেষ বয়সে এসেও ছেলেদের নির্যাতন সহ্য করতে হচ্ছে। বাধ্য হয়ে প্রতিকার চেয়ে চার ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এছাড়া ছেলেদের প্রাণনাশের হুমকিতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তিনি’।

এ বিষয়ে পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, ‘আইনী আশ্রয় নেয়া বৃদ্ধা বাবার লিখিত অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে প্রতারণা করে জমি লিখে নেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করছেন অভিযুক্ত ছেলেরা। নির্যাতন আর হুমকির অভিযোগও মিথ্যা বলে দাবি করছেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *