ট্রফি ছুঁয়েই মুশফিক বললেন ‘আলহামদুলিল্লাহ’

স্পোর্টস ডেস্ক- ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে নতুন এক ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ। সপ্তমবারের মতো ফাইনালে উঠে প্রথমবারের মতো প্রতিপক্ষকে বধ করে টাইগাররা। বাংলাদেশের ক্রিকেটের এই ঐতিহাসিক জয়ে যারপরনাই খুশি সকল ক্রিকেটার ও সমর্থক।

এমন আনন্দের দিনে মুশফিক যেন, ট্রফি ছুঁয়েই বললেন ‘আলহামদুলিল্লাহ’। শুক্রবার ডাবলিনে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচটি ২৪ ওভার করা হয়। নির্ধারিত ২৪ ওভারে ক্যারিবীয়ানরা ১৫২ রান তোলে।

তবে ডার্ক লুইস পদ্ধতিতে ২৪ ওভারে বাংলাদেশের জন্য ২১০ রানের বিশাল লক্ষ্য বেঁধে দেয়া হয়। তবে সেই বিশাল লক্ষ্যভেদ করতে ভুল করেননি টাইগাররা। সৌম্য, মুশফিক আর শেষদিকে মোসাদ্দেক ঝড়ে ৭ বল বাকি থাকতেই পাঁচ উইকেটের বড় জয় নিশ্চিত করে টাইগাররা।

ঐতিহাসিক জয়ের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টাইগারদের মধ্যে সবার আগে ট্রফিসহ ছবি পোষ্ট করেন মুশফিকুর রহিম। ক্যাপশনে তিনবার লিখেন আলহামদুলিল্লাহ।

এর আগে ডার্ক লুইস পদ্ধতিতে ২১০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছে দুর্দান্ত। ছষ্ঠ ওভারের খেলা চলাকালীন দলীয় ৫৯ রানে তামিম (১৮ রান) এবং ৬০ রানের মাথায় সাব্বির ফিরে গেলেও দুর্দান্ত খেলেছেন সৌম্য সরকার।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বাংলাদেশ দলের মারকুটে ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে মাত্র ৪১ বলে এসেছে ৬৬ রান। এরমধ্যে চার ৯টি আর ছক্কা ছিল ৩টি। শুরুতে সৌম্যই মূলত জয়ের রাস্তা তৈরি করেছেন।

সৌম্য আউট হলে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রানরেট ধরে রাখেন বাংলাদেশ দলের অন্যতম ব্যাটিং স্তম্ভ মুশফিকুর রহিম। দলের প্রয়োজনে এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মাত্র ২২ বলে করেন ৩৬ রান। তার ইনিংসে ছিল দুটি চার ও দুটি দর্শনীয় ছক্কা। আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে রান আউট না হলে হয়তো আরো আগেই জিততো বাংলাদেশ।

ইতিহাস গড়ার ম্যাচে জ্বলে উঠেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ১৪৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সামনে যখন আবারো স্বপ্নভঙ্গে শঙ্কা তখন মোসাদ্দেক ব্যাট হাতে মাত্র ২৪ বলে ৫২ রানের অপরাজিত এক মহাকাব্যিক ইনিংস খেলেন। তার এই দুরন্ত ইনিংসে ছক্কার মার ছিল ৫টি আর চার ছিল ২টি। তরুণ এই ব্যাটসম্যানের ডানায় ভর করেই প্রথম বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *