প্রধানমন্ত্রীকে ফোন দিয়ে ভাগ্য খুলল ডালিমের

একুশের বার্তা ডেস্ক- সহজ-সরল ডালিম মিয়া পেশায় রিকশাচালক। খেটেখুটে কোনোরকমে দিন কাটে তার। একদিন মনে হলো, নিজের কষ্টের কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানাবেন। নম্বর জোগাড় করে রোববার (১২ মে) রাতে ফোনও দিলেন তার কাছে। সৌভাগ্যই বটে, মোবাইল ফোনে পেয়েও গেলেন প্রধানমন্ত্রীকে!

এসময় মনযোগ দিয়ে ডালিমের কথা শোনেন প্রধানমন্ত্রী। একপর্যায়ে মোবাইলে প্রধানমন্ত্রী মো. ডালিমকে তার আয় উপার্জন বিষয়ে জিজ্ঞাসা করেন। তিনি জিজ্ঞাসা করেন, তোমার জীবিকা কিভাবে চলে?

জবাবে ডালিম জানায়, টানপোড়নের সংসার তার। ছোটখাটো একটি মুদি দোকান রয়েছে তার, যা দিয়ে কোনোরকমে সংসার চলে যায়। তবে বাকি প্রয়োজনীয় বিষয়ে টাকা-পয়সা খরচের সামর্থ্য হয়ে ওঠেনা।

ডালিমের এমন অবস্থার কথা শুনে আপ্লুত হয়ে প্রধানমন্ত্রী তাকে জিজ্ঞাসা করেন, কী লাগবে তোমার?

ডালিম জানায়, জীবিকা নির্বাহের জন্য একটি দুধের গাভি এবং একটি ইজিবাইক (মিশুক) হলে সংসারে আর অনটন থাকবে না তার। এসময় প্রধানমন্ত্রী তাকে অটোরিকশা দেওয়ার পাশাপাশি একটি গাভী ও নগদ পাঁচ হাজার টাকা উপহার দেবেন বলে আশ্বাস দেন।

পরে রাত পার না হতেই উপজেলা ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ডালিমকে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। অবশেষে তাকে খুঁজে বের করে রাতেই ডালিমের বাড়িতে যান বারহাট্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াসমিন। তিনি ডালিমকে জানান, প্রধানমন্ত্রীর তাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি একদিনের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে।

এরপর মঙ্গলবার (১৪ মে) বিকেলে বারহাট্টা উপজেলা কার্যালয় প্রাঙ্গণে ডালিমের হাতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতির অটোরিকশা, গাভী ও নগদ পাঁচ হাজার টাকা তুলে দেন নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক মো. মঈনউল ইসলাম।

এ ব্যাপারে মো. ডালিম বলেন, ‘আমি ভাবতেও পারিনি, দেশের একজন প্রধানমন্ত্রী সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলবেন ও তাদের খোঁজখবর নেবেন। এটা একটা স্বপ্ন, যা হঠাৎ করে বাস্তব হয়ে গেলো। এটা শুধু প্রধানমন্ত্রীর উপহারই নয়, এটা আমার মতো কোটি কোটি সাধারণ মানুষের জন্য একটা অনুপ্রেরণা। আমি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করি।’

জেলা প্রশাসক মো. মঈনউল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে আমাকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পিএস-১ ফোন করে ঘটনার বিবরণ এবং ওই ব্যক্তির ফোন নম্বর দেন। পরে আমি উপজেলা প্রশাসনসহ সবাইকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপহারসামগ্রী একটি ইজিবাইক (মিশুক), একটি গাভি এবং গাভির পরিচর্যার জন্য নগদ পাঁচ হাজার টাকা ডালিমের হাতে তুলে দেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *