সব ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে: লোটে শেরিং

একুশের বার্তা ডেস্ক- একজন ভালো চিকিৎসক হতে হলে তাকে ভালো মানুষ হতে হবে। দেশ ও মানুষের কল্যানে কাজ করতে হবে। সব ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সফররত ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের সাবেক ছাত্র ডা. লোটে শেরিং।

তিনি বলেন, ‘আমি রাজনীতিতে এসেছি, তবে আমার পেশাকে ছেড়ে নয়। ২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত আমি চাকরি না করে, বিদেশে না গিয়ে ভুটানের মানুষের জন্য কাজ করেছি। আমার দেশের মানুষদের চিকিৎসা দিয়েছি ও তাদের নিয়ে ভেবেছি। দেশের জন্য কাজ করেইে আমি সে দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছি।

রবিবার নিজের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ অডিটোরিয়ামে দেয়া বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন। সেখানে তাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. আনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে ভুটানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. টান্ডি দরজি, স্বাস্থ্যমন্ত্রী লায়োনপু দিহেন ওয়াংমু, প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী ডা. উগেন ডেমা, বাংলাদেশের ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, স্বাস্থ্য সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন, জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. লক্ষ্মী নারায়ণ মজুমদার, ময়মনসিংহ বিএমএ সভাপতি ডা. মতিউর রহমান ভুঁইয়াসহ হাসপাতালের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ডা. লোটে শেরিং ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘১৯৯১ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত আমি ও আমার সহপাঠী বর্তমানে ভুটানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. টান্ডি দরজি ময়মনসিংহ শহরের বাঘমারা মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রাবাসের ২০ নম্বর কক্ষে থেকেছি। এখনও একসঙ্গে আমরা রাজনীতি করছি। এ দীর্ঘ সময়ে আমাদের মাঝে কোনও দিন কোনও বিষয়ে মনোমালিন্য হয়নি। আজ তার কারণেই আমি প্রধানমন্ত্রী, তিনিই আমাকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছেন।’

ডা. লোটে শেরিং ছাত্রাবস্থায় বিভিন্ন সময়ের ঘটনা নিয়ে অনেকের নাম উল্লেখ করে ডা. লোতে শেরিং আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন, ময়মনসিংহে থাকাকালিন সময়ের অনেক স্বৃতি কথা বলেন।

রবিবার সকালে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে ময়মনসিংহে পৌঁছলে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা ডা. লোটে শেরিংকে স্বাগত জানান। সহপাঠীরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন। পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ড পরিদর্শন করেন তিনি। তার আগমন উপলক্ষে মেডিক্যাল কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকা বর্ণিল সাজে সজ্জিত করা হয়। শহরজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।

২০১৩ সালে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পর ২০১৮ সালে ভুটানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তার দল জয়লাভ করে। পরে ডা. লোটে শেরিংকে প্রধানমন্ত্রী করা হয়। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর এটি তার প্রথম বাংলাদেশ সফর। বন্ধুদের সঙ্গে পহেলা বৈশাখ উদযাপনের জন্য ২০ বছর পর তিনি ময়মনসিংহে এলেন।

২৮তম ব্যাচের ছাত্র ডা.লোটে শেরিং ১৯৯১ সালে বিদেশি কোটায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি হন। ১৯৯৮ সালে এমবিবিএস পাস ও পরে ১৯৯৯ সালে ইন্টার্নশিপ শেষে ঢাকার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *