করোনা সতর্কতা : সংবাদ কর্মীদের ঝুঁকি কমাতে কোন অফিসের কী ব্যবস্থা

কোভিড-১৯ এমন এক রোগের নাম যে প্রতিনিয়ত পাল্টে দিচ্ছে বিশ্বকে। ব্যক্তি, সমাজ বা দেশ নয়; পরিবর্তনের ধাক্কায় টালমাটাল বৈশ্বিক অর্থনীতি কিংবা রাজনীতি। স্থবির হয়ে গেছে খেলাধুলাসহ সামাজিক কিংবা সাংস্কৃতিক যাবতীয় আয়োজন। একে একে বন্ধ হচ্ছে মসজিদ, মন্দির, গির্জাসহ ধর্মীয় উপসনালয়ও। পরিবর্তনের ধাক্কা এসে লেগেছে গণমাধ্যমেও। এরইমধ্যে একজন স্টাফের মধ্যে করোনা উপসর্গ দেখা দেয়ায় এসোসিয়েটেড প্রেসের ওয়াশিংটন অফিস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সম্প্রচার বন্ধ রয়েছে সিএনএন-ফিলিপাইনের। কারণ এক কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

এ অবস্থায় বাংলাদেশে কর্মরত গণমাধ্যম কর্মীরাও রয়েছে মারাত্মক ঝুঁকিতে। সাংবাদিকদের ঝুঁকি কমাতে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম নানা উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রথম আলো : অফিসে ঢোকার আগেই তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। জীবাণুনাশক দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। আংশিকভাবে চালু হয়েছে ওয়ার্ক অ্যাট হোম (বাড়ি থেকে অফিস)। অসুস্থ বোধ হলে ছুটি নিতে বলা হয়েছে অফিস থেকে।

ডেইলি স্টার : ভবনের নীচেই হ্যান্ড সেনিটাইজার ও বেসিন রাখা হয়েছে, যাতে সংবাদ কর্মীরা হাত জীবাণুমুক্ত করতে পারেন। তাপমাত্রা পরিমাপের ব্যবস্থা রয়েছে। অফিস থেকে মাস্ক সরবরাহ করা হয়েছে প্রত্যেকের জন্য। মেডিকেল বা ঝুঁকিপূর্ণ রিপোর্টিংয়ের জন্য আলাদা পোশাকের কথা ভাবা হচ্ছে। আইইডিসিআরের সংবাদ সম্মেলনে রিপোর্টার পাঠানো হয় না। টেলিভিশন বা অন্য সংবাদ মাধ্যম থেকে আইইডিসিআরের তথ্য নিতে বলা হয়েছে। নিউজ পারপাসে হাসপাতালে যেতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

ঢাকা ট্রিবিউন : প্রবেশের সময় জীবাণুনাশক দিয়ে হাত পরিষ্কারের ব্যবস্থার পাশাপাশি প্রত্যেক কর্মীকে মাস্ক দেয়া হয়েছে। ডেস্ক এবং ফ্লোর দুটোই জীবাণুনাশক দিয়ে কয়েকবার করে পরিষ্কার করা হয়। সবকর্মীকে বাসা থেকে অফিস করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, রিপোর্টাররা স্পট থেকে নিউজ পাঠিয়ে দেবেন। এজন্য অফিসে আসতে হবে না। আর যারা অনলাইন/ডেস্কে কাজ করেন তারাও বাসা থেকে কাজ করবেন। প্রিন্ট পত্রিকার জন্য ২/৩জন সিনিয়র ব্যক্তি পালাক্রমে অফিসে যান।

বাংলাট্রিবিউন : ঢাকা ট্রিবিউনের মতো বাংলাট্রিবিউনের কর্মীরাও ওয়ার্ক অ্যাট হোম সুবিধা পাচ্ছেন।

বিডিনিউজ 24 : পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে জোর দেয়া হয়েছে। মৌখিকভাবে ওয়ার্ক অ্যাট হোমের প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

অধিকার ডট নিউজ : বাসা থেকে কাজ করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। জরুরি এক ঘোষণায় জানানো হয়, আগামী ২১ মার্চ (শনিবার) থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিজ নিজ বাসায় থেকে সংবাদের কাজ করবেন বার্তা বিভাগের সাংবাদিকরা। এ ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব সার্ভারে যোগাযোগের মাধ্যমে প্রিন্ট ও অনলাইনের সংবাদের কাজ পরিচালনা করা হবে। অপরদিকে নিজস্ব প্রতিবেদক ও জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস এবং আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিদের নিরাপত্তার বিষয়টিও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ পোস্ট : সতর্কতা হিসেবে দেশের প্রথম সারির ইংরেজি দৈনিক বাংলাদেশ পোস্ট ও অনলাইন আজকের বাংলাদেশপোস্ট.কম কর্তৃপক্ষ কর্মীদের বাসায় থেকে কাজ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এখন থেকে প্রতিষ্ঠানটির সাংবাদিক, কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের শুধুমাত্র কয়েকজন গুরুত্বপুর্ণ ব্যক্তি ব্যতীত পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বাড়িতে বসেই কাজ করবেন।

সময় টিভি: তাপামাত্রা মেপে অফিসে ঢুকতে হবে। যাদের শরীরে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তাপমাত্রা তাদের বাসায় থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। স্যানিটাইজার, মাস্ক ও গ্লাভস দেয়া হয়েছে। এছাড়া রিপোর্টারদের নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে তারপর কাজ করতে বলা হয়েছে। গণপরিবহন এড়াতে কর্মীদের আনা নেয়ার জন্য পিক ড্রপের সুবিধা দেয়া হয়েছে।

চ্যানেল 24 : প্রবেশকালেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবাণুমুক্ত করে নিতে হবে। কাজের মাঝেও হাত জীবাণুমুক্ত করতে প্রতিটি ডেস্কে হেক্সিসলের ব্যবস্থা রয়েছে। জরুরী অফিস নির্দেশনায় কর্মীদের ওয়ার্ক আওয়ারে বাইরে যেতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। গণপরিবহন এড়াতে কর্মীদের আনা নেয়ার জন্য পিক ড্রপের সুবিধা দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *