বাড়ি ভাড়া নেবেন না ঢাকার এই বাড়িওয়ালারা

একুশের বার্তা ডেস্ক- করোনা ভাইরাসের সুযোগ নিয়ে যেখানে অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন, সেখানে রাজধানীর কয়েকজন বাড়িওয়ালা উদারতার দৃষ্টান্ত রাখলেন। তারা ঘোষণা দিয়েছেন এই সংকটের সময় ভাড়াটিয়াদের থেকে বাড়ি ভাড়া নেবেন না।

তাদের মধ্যে রয়েছে অভিনেত্রী ভাবনার পরিবার। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে তারা ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন।

ভাবনার বাবা হাবিবুল ইসলাম হাবিব সংবাদমাধ্যমকে জানান, রাজধানীর পুরান ঢাকায় তাদের ভবনে কয়েকটি পরিবার ভাড়া থাকেন। তাদের অনেকেই এখন ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। অনেকের আর্থিক সংকটও দেখা দিচ্ছে। এমন অবস্থায় আমরা তাদের মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ভাবনার বাবা আরো জানান, যারা ভাড়া বাসায় থাকেন এ সংকটের সময়েও সে পরিবারগুলোর মুখে যেন হাসি থাকে। এ জন্য রাজধানীসহ সারা দেশের বাড়িওয়ালাদের এ বিষয়ে এগিয়ে আসতে হবে।

এর আগেও ঢাকার আরো কয়েকজন বাড়িওয়ালা তাদের ভাড়াটিয়াদের চলতি মাসের ভাড়া মওকুফ করেন। তাদের মধ্যে একজন হলেন মুহিব রহমান।

একটি নোটিশে তিনি লিখেন, ‘প্রিয় ভাড়াটিয়াগণ, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে আপনাদের আগামী দুইমাসের ভাড়া মওকুফ করা হলো। বিশেষ অনুরোধ- ১. ভাড়ার টাকা দিয়ে পারলে কারও সাহায্য করুন। ২. ইলেকট্রিক বিল সময়মতো নিজ দায়িত্বে পরিশোধ করুন। ৩. কিছুক্ষণ পরপর সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নেবেন। ৪. অপ্রয়োজনে বাসার বাইরে যাবেন না।’

তার এমন উদ্যোগের প্রশংসা করছেন অনেকেই। এটিকে তার উদারতা বলছেন। অন্যান্য বাড়িওয়ালাদেরও ভাড়াটিয়াদের পাশে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

মুহিব রহমান বলেন, আমি ইচ্ছে করেই নোটিশের ছবি ফেসবুকে দিয়েছি যেন মানুষ দেখে। আমাদের সবদিক থেকে এ রোগের বিরুদ্ধে লড়তে হবে। সরকার একা কিছুই করতে পারবে না।

অপরদিকে রাজধানীর জুরাইনের ভবন মালিক শেখ শিউলি হাবিবও বাড়ি ভাড়া মওকুফের কথা বলেন। নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেন, করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করার কারণে দেশের সবকিছুই স্থগিত হয়ে পড়েছে। মানুষ কর্মস্থলে যেতে পারছে না। তাই আমি এদেশের একজন ক্ষুদ্র নাগরিক হিসেবে আমার বাসার সব ভাড়াটিয়ার মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিলাম।

আমি বলব, বাংলাদেশের সব বাড়িওয়ালার এই দুর্যোগের সময় ভাড়াটিয়াদের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *