হাত ধোয়া শেখাচ্ছে গুগল ডুডল

হাত ধোয়ার গুরুত্ব নতুনভাবে তুলে এনেছে করোনাভাইরাস। সেই বিষয়টি আরেকবার স্মরণ করিয়ে দিলে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। শুক্রবার হোমপেজে প্রকাশিত এক ভিডিও’র মাধ্যমে দেখানো হলো হাত ধোয়ার পদ্ধতি।

ডুডলটিতে রয়েছে একটি প্লে বোতাম। সেটি প্লে করলেই ৫০ মিনিটের অ্যানিমেশনের মাধ্যমে ছয় ধাপে হাত ধোয়া শেখানো হচ্ছে।

প্রথমে হাতে সাবান মাখানো। দ্বিতীয় ধাপে আঙুলের খাঁজ পরিষ্কার করা। তৃতীয় ধাপে দুই হাতের আঙুলগুলো একে অপরের মধ্যে দিয়ে কচলে সাবান মাখানো। এরপর আঙুলের ডগা পরিষ্কার করে পঞ্চম ধাপে বুড়ো আঙুল কচলে ধোয়া। ষষ্ঠ ধাপে হাতের তালু পরিষ্কার। এরপর পানি দিয়ে ভালো করে সাবান ধুয়ে ফেললেই হাত পরিষ্কার হয়ে গেল।

এবার আসা যাক অ্যানিমেটেড ভিডিওতে দেখা যাওয়া ব্যক্তি প্রসঙ্গে। তিনি হাঙ্গেরির আগনাজ সেম্মেলউইস। ‍যিনি মৃত্যুর পর ‘প্রসূতিদের ত্রাণকর্তা’ নামে খ্যাতি পান। তার হাত ধরেই বিশ্ব জানতে পারে হাত ধোয়ার উপকারিতা। অ্যান্টিসেপটিক ধারণার জন্মও দেন তিনিই। সেই বিখ্যাত মানুষটির শেখানো হাত ধোয়া এই একবিংশ শতাব্দীতেও করোনা থেকে রক্ষা করছে মানুষকে।

দুই শতক বছর আগে চিকিৎসকদের মধ্যেই হাত ধোয়ার প্রচলন ছিল না। ফলে হাসপাতালগুলোতে বিশেষ করে প্রসূতিদের মৃত্যুর হার ছিল মারাত্মক মাত্রায় বেশি। ঠিক ওই সময়েই প্রসূতিদের সুরক্ষায় চিকিৎসকদের হাত ধোয়া, তথা জীবাণুমুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন সেম্মেলউইস। প্রথমে তার কথায় মনোযোগ দেয়নি অন্যরা। পরে ১৮৪৮ সালের মধ্যে ভিয়েনা হাসপাতালে প্রসূতি মৃত্যুর হার নেমে আসে হাজারে ১২.৭-এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *