গরম পড়লে করোনার প্রকোপ কমবে?

অনেকে বলে থাকেন- গ্রীষ্মের দাবদাহ নোভেল করোনাভাইরাসের হাত থেকে নিষ্কৃতি দেবে। এমন ধারণা পুরোপুরি ঠিক নয়। এই সতর্কবার্তা দিলেন বিশেষজ্ঞরা।

জীবাণু বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, তাপমাত্রার উত্থান ও আর্দ্রতাপূর্ণ আবহাওয়া Sars-CoV-2 জীবাণু সংক্রমণের হার অল্প কমালেও তা একেবারে লোপ করতে পারবে না।

তাদের দাবি, ফ্লু জাতীয় রোগের জীবাণু আবহাওয়া পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে অকেজো হয়ে পড়লেও করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে সেই তত্ত্ব অচল। চীনের গবেষকেরা জানিয়েছেন, তাপমাত্রায় প্রতি ১ ডিগ্রি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সংক্রমণ বৃদ্ধির হার দাঁড়ায় ০.৮৩%।

যদিও ২০ জানুয়ারি থেকে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চীনে তাপমাত্রা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে সংক্রমণের হার বিচার করে গুয়াংঝাউয়ের সান ইয়াৎ-সেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা জানিয়েছেন, গ্রীষ্মপ্রধান দেশে গরকমকালে সংক্রমণের হার সামান্য কমতে পারে। তবে এই মত এখনো সর্বজনগ্রাহ্য হয়নি।

এ দিকে হার্ভার্ড টি এইচ চ্যান স্কুল অফ পাবলিক হেলথের গবেষকদের মতে, আবহাওয়া বৈচিত্র্য থাকা সত্ত্বেও চীনের ঠান্ডা ও শুকনো অঞ্চলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হারে লাগাম দেওয়া সম্ভব হয়েছে। পাশাপাশি, ভারতের কেরালার মতো গরম ও আর্দ্র রাজ্যেও দ্রুত হারে এই ভাইরাস সংক্রমণের হার বাড়তে দেখা যাচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, শুধুমাত্র আবহাওয়া পরিবর্তন এবং তাপমাত্রা বৃদ্ধি করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে যথেষ্ট নয়। তার জন্য দরকার সামগ্রিক জনস্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি। হার্ভার্ড স্কুল অফ পাবলিক হেলথের বিশেষজ্ঞ মার্ক লিপসিচ জানিয়েছেন, Sars-CoV-2 অন্যান্য বেটা করোনাভাইরাসের মতো আচরণ করে, তা হলে তাপমাত্রা বাড়লে তার সংক্রমণের হার কমবে। তবে তা এতই নগণ্য যে রোগ ছড়ানোর আশঙ্কা আদৌ কমবে বলে মনে হয় না।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর নির্বাহী পরিচালক মাইক রায়ানের মতে, “গ্রীষ্মে ফ্লু-এর মতো করোনাভাইরাসও অদৃশ্য হয়ে যাবে, এমন ভাবনা মিথ্যা আশা। আমরা এমন পূর্বাভাস করতে পারি না। এবং এই তত্ত্ব প্রমাণ সাপেক্ষ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *