‘বিশ্ববিদ্যালয় সরকারের অর্থ নিতে পারলে সিদ্ধান্ত কেন নয়’

একুশের বার্তা ডেস্ক- দেশের বেশ কিছু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান অস্থিরতা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকার ব্যবস্থা নেয়ার পর অনেক জায়গায় অহেতুক অভিযোগ তুলে আন্দোলন করা হচ্ছে এমন অভিযোগ করে তিনি বলেছেন, ‘সরকার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থ দেবে, সবরকম উন্নয়ন প্রকল্প করবে সেটা নিতে খুব ভালো লাগবে। আর সরকার সেখানে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারবে না সেটা কখনো হতে পারে না।’

শনিবার দুপুরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক লীগের ১৩তম জাতীয় সম্মেলনে শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পেছনে সরকারের বিপুল পরিমাণ ভর্তুর্কি দেয়ার কথা স্মরণ করিয়ে বলেন, ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলে-মেয়েরা যে উচ্চ শিক্ষা পায় বিশ্বের কোথাও এত অল্প খরচে উচ্চ শিক্ষা দেয়া হয় না। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে স্বায়ত্বশাসন আছে ঠিকই কিন্তু টাকা দিচ্ছে কারা? টাকা তো সরকার দিচ্ছে। সরকারের দেয়া টাকা ইউজিসিতে যায়। সেখান থেকে প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়ে যায়। সেই টাকা থেকে শিক্ষকরা বেতনভাতা পাচ্ছেন।’

‘ছাত্ররা বিশ্ববিদ্যালয়ে একেকজন কয় টাকা খরচ করে। মাসে বড় জোর দেড়শ টাকা খরচ করে। এই টাকায় কি উচ্চ শিক্ষা হয়? যদি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে যান কত লাখ লাখ টাকা খরচ হয় প্রত্যেক সেমিস্টারে। আর পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কত টাকা লাগে? সেই টাকা কে যোগান দেয়। সরকার যোগান দেয়। সরকার একেকজনের পেছনে দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা খরচ করে।’

ইঞ্জিনিয়ারিং বা কারিগরির শিক্ষার্থীর জন্য বেশি টাকা খরচ হয়- এমনটা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সব টাকা তো সরকারের পক্ষ থেকে যাচ্ছে। তাই সেখানে ডিসিপ্লিন থাকবে, উপযুক্ত শিক্ষা পাবে। নিজেদের সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়ে তোলবে সেটাই আমরা চাই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন আমরা নাকি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বুঝি না। যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছেন তারাই বোঝেন। পড়াশোনা নষ্ট করে, সেখানে ধর্মঘট করে দিনের পর দিন কর্মঘণ্টা নষ্ট করবেন, পড়াশোনা ব্যাহত করবেন তারা বোঝেন। আমরা বুঝি না এটা তো হয় না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *