নিখোঁজের পাঁচদিন পর স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার, আটক ৩

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে নিখোঁজের পাঁচদিন পর আকিব ইসলাম খান অমি (১২) নামে ৫ম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে স্থানীয় তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

অমি নালিতাবাড়ী পৌর শহরের শাহীন স্কুলের ৫ম শ্রেণির ছাত্র ও নালিতাবাড়ী পৌর শহরের কালিনগর মহল্লার আব্দুর রউফ খানের ছেলে। বুধবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে অমির বাড়ীর পাশে ধান ক্ষেত থেকে প্লাস্টিকের বস্তাবন্দি অবস্থায় শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, শনিবার (২ নভেম্বর) বিকেলে বাড়ীর পাশে স্থানীয় নাজমুল স্মৃতি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের মাঠে খেলার সাথীদের সাথে খেলতে যায় অমি। বিকেল ৪ টার দিকে খেলার মাঠ থেকে বাসায় ফিরে যাওয়ার কথা বলে চলে আসে অমি। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। নিখোঁজের পর পরই পরিবারের পক্ষ থেকে তার সন্ধান চেয়ে মাইকিং করা হয়। এছাড়াও থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়। এরপর বহু খোঁজাখুজির পর বুধবার দুপুরে পুলিশ অনুসন্ধান চালিয়ে নিখোঁজ শিশুটির বাড়ীর পার্শ্বে আমন ধানের ক্ষেত থেকে একটি প্লাস্টিকের বস্তাবন্দি ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে।

এদিকে, এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে গতকাল মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় বিল্লাল হোসেন এর ছেলে রাকিব (১৯), ভাগ্নে জসিম ও সিয়াম নামে তিন জনকে আটক করে পুলিশ। পরে তাদের দেয়া তথ্যমতে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে অনুসন্ধান চালিয়ে নিখোঁজ অমির বাড়ীর পাশে সাবেক কাউন্সিলর বকুল মিয়ার আমন ধান ক্ষেত থেকে নিখোঁজ আকিব ইসলাম খান অমি এর মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

অপরদিকে, অমির লাশের খবর পেয়ে এলাকায় নেমে আসে শোকের ছায়া। স্থানীয় শাহীন স্কুল তাৎক্ষণিক ছুটি দিয়ে দেয় সকল শিক্ষার্থীদের। এসময় সহপাঠীসহ শাহীন স্কুলের শিক্ষার্থীরা এমন হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত তাদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানায়।

এ ব্যাপরে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বছির আহমেদ বাদল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে এ শিশুটিকে হত্যা করে বস্তাবন্দি অবস্থায় ধানক্ষেতে ফেলে রাখা হয়ে থাকতে পারে। তবে খুব দ্রুতই এ খুনের মূল রহস্য উদঘাটিত হবে বলে তিনি জানান। মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *