শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একটি ছাত্র সংগঠনের কাছে জিম্মি : মাহবুব উদ্দিন

সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একটি নির্দিষ্ট ছাত্র সংগঠনের কাছে জিম্মি হয়ে আছে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক (বিএনপি সমর্থিত) ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা তীব্র নিন্দা জানিয়ে হত্যাকাণ্ডে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একটি নির্দিষ্ট ছাত্র সংগঠনের কাছে জিম্মি। প্রতিষ্ঠানগুলোয় একটির পর একটি হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হচ্ছে, কিন্তু কোনোটিরই বিচার হচ্ছে না। লোক দেখানো কিছু গ্রেফতার হলেও প্রকৃত আসামিরা থেকে যাচ্ছে পর্দার অন্তরালে।

আবরার হত্যার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে একই স্থানে আজ আলাদা আরেকটি সংবাদ সম্মেলন করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থিত আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন।

ছাত্র নামধারী একটি ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীদের অপরাধের সীমা ছাড়িয়ে গেছে বলে উল্লেখ করে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, আবরার হত্যার বিচার দ্রুত শেষ করতে হবে। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে এমন হত্যাকাণ্ড কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

এ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী সমিতির সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট শরীফ উদ্দিন আহমেদ ও কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সৈয়দা শাহিন আরা লাইলী।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যার প্রতিবাদে সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে ব্যারিস্টার খোকন বলেন, ‘স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে এমন হত্যাকাণ্ড কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায়না। সরকার মাঝে মাঝে জঙ্গি ধরে এবং ক্রসফায়ারের নাটকও করে, এদের জঙ্গি কর্মকাণ্ড অনেক সময় প্রকাশ পায় না। কিন্তু আবরার হত্যাকারীরা হলো প্রকৃত জঙ্গি। এসব সন্ত্রাসীকে আইনের আওতায় আনতে হবে এবং দ্রুত বিচার কার্যকর করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব সম্পর্কে নিজের চিন্তা, বিবেক ও স্বাধীনভাবে মতামত প্রকাশ করার জন্য ছাত্রলীগ নামীয় সন্ত্রাসীরা তাকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। এমন ঘটনা অত্যন্ত অমানবিক, মর্মান্তিক, পৈশাচিক ও হৃদয়বিদারক, যা নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি প্রতিবন্ধীর মতো চুপচাপ থাকতে পারে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *