কবিরাজের পরামর্শে ছেলেকে পানিতে চুবিয়ে মারলেন বাবা!

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলেকে পানিতে চুবিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার বাবার বিরুদ্ধে। এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে ছেলে সোহানের (১৮) মরদেহ গতকাল শুক্রবার রাতে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়। শনিবার মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা করেছে পুলিশ।

নিহত সোহান ভৈরবের কালিকাপ্রসাদ গ্রামের মো. আতর মিয়ার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন যাবত সোহান মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। তাকে সুস্থ করতে তার বাবা গত কয়েক বছরে লাখ লাখ টাকা খরচ করেছেন। কিন্তু ভালো না হওয়ায় স্থানীয় এক কবিরাজের পরামর্শে তার বাবা প্রতিদিন বিলে নিয়ে তাকে পানিতে চুবিয়েছে। শুক্রবার বিকেলে পানিতে চুবানোর সময় শরীর দুর্বল হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে সোহান। ঘটনাটি দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে রাতে পরিবারের সদস্যরা সোহানের মরদেহ দাফনের উদ্যোগ নিলে পুলিশ এসে মরদেহ নিয়ে যায়।

নিহত সোহানের বাবা আতর মিয়া বলেন, কোন বাবা তার ছেলেকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করতে পারে না। আমার ছেলে মানসিক রোগী ছিল। তাকে সুস্থ করতে অনেক চিকিৎসা করিয়েছি। তারপর কবিরাজের পরামর্শে তাকে প্রতিদিন দুইবার গোসল করিয়েছি। গোসলের সময় সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। আমার ধারণা সে হৃদরোগে বা অন্য কোনো কারণে মারা গেছে। এলাকায় প্রতিপক্ষরা শত্রুতা করে পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

ভৈরব থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শ্যামল সাহা বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগ পেয়ে মরদেহটি থানায় এনে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জে পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *