মায়ের পরকীয়া প্রেমিককে মারধরের পর মূত্রপান করাল ছেলে

স্বামীর মৃ’ত্যু হয়েছে। নিজের বলতে রয়েছে দুই ছেলে। কিন্তু তারাও মাকে সময় দিতো না। বিধবা নারীর একাকীত্বে ভরা জীবনে হঠাৎই রঙ লাগে। বয়সে ছোট দূরের এক আত্মীয়র সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ওই ব্যক্তিকেই আঁকড়ে ধরে বাকিটা জীবন বাঁচতে চান। ছেলেদের অগোচরেই কিছুদিন ধরে চলে তাদের সম্পর্ক। অবশেষে ভালোবাসার টানে বাড়ি ছাড়েন ওই নারী।

কিন্তু নাড়ির টান সামলাতে না পেরে, আবারও সেই বাড়িতেই ফিরে আসেন তিনি। আর তারপরই ভয়ংকর এক অভিজ্ঞতার সাক্ষী হন। বাড়ি ফিরতেই ছেলেদের অকথ্য অত্যাচারের সম্মুখীন হলেন তিনি ও তার প্রেমিক। দু’জনের মাথা ন্যাড়া করে মূত্রপান করানোর অভিযোগ উঠেছে ছেলেদের বিরুদ্ধে। ঘটনায় অভিযুক্ত দু’জনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে তদন্ত।

ভারতীয় একটি দৈনিক বলছে, সোমবার এই মধ্যযুগীয় বর্বরতার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের রাজস্থানের নাগাউর জেলায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এই খবর। মঙ্গলবার খবর পেয়ে ওই বিধবা নারী ও তার প্রেমিককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় ওই নারীর দুই ছেলে মতিনাথ ও রাজনাথকে।

নাগাউর পুলিশের এএসপি নীতেশ আর্য জানান, প্রেমিকের সঙ্গে দশদিন আগে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান ওই নারী। তবে বেশি দিন বাড়ি ছেড়ে থাকতে পারেননি তিনি। কয়েকদিন আগে প্রেমিককে নিয়ে গ্রামে ফিরে আসেন। মা ফিরেছে জেনেই রণমূর্তি ধারণ করে তার দুই ছেলে। সোমবার দু’জনকে মারধর করে অভিযুক্তরা। তাদের চুল ন্যাড়া করে সমগ্র গ্রামে ঘোরানো হয়। তাতেও রোষ না মেটায়, তাদের মূত্রপান করান অভিযুক্তরা।

পুলিশ বলছে, দুই অভিযুক্ত জানিয়েছে, ৩৫ বছরের এক ব্যক্তির সঙ্গে বিধবা মায়ের সম্পর্ক মেনে নিতে পারেনি তারা। এই বিষয়ে প্রতিনিয়ত পরিচিতদের কাছে তিরস্কারের মুখে পড়তে হতো তাদের। সেই আক্রোশ থেকেই মা ও তার প্রেমিকের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *