ফরজ গোসল না করে শুধু অজু করে নামাজ পড়া যাবে?

কোনো কারণে ফরজ গোসল দিতে না পারলে শুধু অজু করে বা তায়াম্মুম করে কি ওয়াক্তের নামাজ পড়া যাবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে বিশিষ্ট আলেম ড. মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ বলেন, প্রথমে আপনি গোসল করবেন, তারপর সালাত আদায় করবেন। নাপাক অবস্থায় সালাত আদায় করার কোনো সুযোগ নেই। অপবিত্র অবস্থায় আল্লাহ বান্দার কোনো সালাত কবুল করেন না। ওয়াক্ত চলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকলেও আগে গোসল করে তারপর সালাত আদায় করবেন এবং দেরি হওয়ার কারণে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইবেন।

আসুন গোসলের ফরজ সর্ম্পকে জেনে নিই। গোসলের ফরজ কাজ হলো তিনটি:- এ তিনটি কাজ যথাযথভাবে পালন না করলে ফরজ গোসল আদায় হয় না।

কুলি করা। (বুখারি, হাদিস : ২৫৭, ২৬৫, ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৫৬৬)

নাকে পানি দেওয়া। (বুখারি, হাদিস : ২৬৫, ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৫৬৬)

সারা শরীরে এমনভাবে পানি পৌঁছানো, যাতে কোনো স্থান শুকনা না থাকে। (আবু দাউদ, হাদিস : ২১৭)

গোসলের সুন্নত:

সুন্নতমতো গোসল করার জন্য নিম্নোল্লিখিত বিষয়গুলো খেয়াল রাখা প্রয়োজন, যাতে গোসল পরিপূর্ণ হয়।

গোসল আরম্ভ করার আগে বিসমিল্লাহ পাঠ করা। (জমউল জাওয়ামে, হাদিস : ১৩০৭৩)

পবিত্রতা অর্জনের নিয়ত করা। (বুখারি, হাদিস : ১)

উভয় হাতকে প্রথমে কবজি পর্যন্ত ধৌত করা। যেমন ওজুতে ধোয়া হয়। (বুখারি, হাদিস : ২৪০)

কাপড় বা শরীরে নাপাকি লেগে থাকলে তা গোসলের আগে ভালোভাবে ধুয়ে নেওয়া। (মুসলিম : ৪৭৪)

গোসলের আগে অজু করা। কিন্তু জায়গা যদি এত নিচু হয় যে পানি জমে যায়, তাহলে পা পরে ধৌত করা। (বুখারি ২৪০, ২৪১)

পুরো শরীরে তিনবার পানি প্রবাহিত করা। (মুসলিম, হাদিস : ৪৭৪, ৪৭৬)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *